পুলিশকে আসলেই মানুষ‌‌ ভালোবাসে


 

যে সব কারনে পুলিশকে  মানুষ‌‌ ভালোবাসে….

১. যে কোন বিপদে পুলিশের উপস্থিতি আশা করে

২. সাহায্যের জন্য পুলিশের কাছে ছুটে আসে
৩. অনুষ্ঠানের বাড়িতেও এখন পুলিশের উপস্থিতি কামনা করে
৪. ক্ষতিগ্রস্তদের একমাত্র ভরসাস্থল পুলিশ

৫. রাতে চলাফেরার সময় নিরাপত্তার জন্য পুলিশের উপস্থিতি আশা করে
৬. প্রতিবেশীর উৎপাৎ থেকে বাঁচার জন্য পুলিশের কাছে আসে
৭. বর্তমানে বিপথে যাওয়া সন্তানকে সুপথে আনার জন্য পুলিশের কাছে সাহায্যের জন্য আসে
৮. সন্তানের অত্যাচার থেকে বাঁচার জন্য পুলিশের কাছে আসে
৯. নিজ এলাকায় একটি পুলিশ ক্যাম্প বা পুলিশী স্থাপনার জন্য মানুষ সবরকম চেষ্টা করে
১০. একজন পুলিশের সাথে পরিচয় হলে তার মোবাইল নম্বরটি নিয়ে সেভ করে রাখে বিপদের সময় কাজে লাগবে বলে
১১. নতুন ভাড়াটিয়া পুলিশ হলে মালিক নিরাপদ বোধ করে
১২. নতুন ভাড়াটিয়া পুলিশ হলে প্রতিবেশীরা নিরাপদ বোধ করে
১৩. পারিবারিক ছোটখাট সমস্যা হলেও সুযোগ থাকলে পুলিশের সহায়তা চায়
১৪. বর্তমানে অনেক সচেতন অভিভাবক সন্তান বিয়ের ক্ষেত্রে পর্যন্ত ভালো মন্দ যাচাইয়ের জন্য গোপনে পুলিশি সাহায্য চায়
১৫. প্রবাসে স্বজন বিপদে পড়লেও দেশি পুলিশের পরামর্শ চায়
১৬. রাতের বেলা এলাকায় পুলিশ আছে জানলে জনগণ নিশ্চিন্তে ঘুমায়
১৭. পরিবারের একজন অথবা স্বজন পুলিশ হলে সবাই গর্ববোধ করে
১৮. তাবৎ প্রভাবশালীরাও বিপদের সময় পুলিশের কাছে আসে
১৯. সন্তান মাদকাসক্ত হলে সমাধানের জন্য পুলিশের কাছে আসে
২০. বিপদের আশঙ্কা থাকলে পরিচিত পুলিশের মোবাইল নম্বরটি ডায়াল মোডে এনে রাখে
২১. আগুন লাগলে ফায়ার সার্ভিসের আগেই পুলিশের উপস্থিতি কামনা করে
২২. যে কোন অন্যায় দেখলে গোপনে হলেও পুলিশকে জানায়
২৩. আক্রান্ত হবার ঝুঁকি থাকলে পুলিশের কাছে যাবার হুমকি দেয়
২৪. অত্যাচারিত হলে প্রতিশোধ নেয়ার জন্য সন্তানকে পুলিশ বানানোর আশা করে
২৫. ছুটিতে বাড়ি গেলে লোকজন সমস্যা নিয়ে আসে সমাধানের জন্য
২৬. বিভিন্ন অফিসারের নিকট একটুখানি তদবির করার আবদার করে
২৭. যে কোন সালিশ বৈঠকেও নিরপেক্ষতার জন্য পুলিশের উপস্থিতি কামনা করে
২৮. যে কোন অন্যায়ের ক্ষতিপূরণ পুলিশের মাধ্যমে পাওয়ার আশা করে
২৯. পুলিশের পোষাক দেখে হিংসা করে, শ্রদ্ধা করে, ভালোবাসে
৩০. অনেকেই তার সন্তানকে পুলিশ বানানোর আশা করে
৩১. অনেক মেধাবীরা কঠোর পরীক্ষা ও প্রতিযোগিতার মাধ্যমে পুলিশ হয়
৩২. বিসিএসে অধিক যোগ্যগন পুলিশ হয়
৩৩. ডাক্তার ইঞ্জিনিয়ারগনও এখন দেদার পুলিশে আসে
৩৪. অন্য ক্যাডারে যাওয়া সতীর্থরা পুলিশে না আসায় পরে আফসোস করে
৩৫. পুলিশে মেধাবীরা জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে কাজ করে আর্থিক ও সামাজিক ভাবে পরিবারের উন্নতি ও সম্মান বৃদ্ধি করে
৩৬. মিশণে কাজ করে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করে এবং রাষ্ট্রের পরিচিতি ও মর্যদা বৃদ্ধি করে
৩৭. আধুনিক ও অগ্রসর মেয়েরা পুলিশ বর খুব পছন্দ করে
৩৮. পুলিশ পাত্রের কাছে মেয়ে বিয়ে দেয়ার জন্য রীতিমতো প্রতিযোগিতা চলে
৩৯. পুলিশের ইউনিফর্ম ও অস্ত্র লাঠি হাতকড়া অন্যের মনে হিংসা জাগায়
৪০. নিজের বিপক্ষে পুলিশ এলে অপমান বোধ করে কিন্তু নিজের বিপদের সময় সেই পুলিশেকে পাশে পেলে গর্ববোধ করে
৪১. এলাকায় গিয়ে দারোগা সাহেব কারো এককাপ চা খেলে বা পরিচিত হলে গর্বে ঐ লোকটির বুক ভরে যায়
৪২ পুলিশটি মেয়ে হলে নারীরা গর্ববোধ করে
৪৩. মেয়ে পুলিশ দেখে অনেক মেয়েরা সুশিক্ষিত ও সাবলম্বী হতে ভরসা পায়
৪৪. পুলিশ বাজারে দেখলে অসৎ ব্যবসায়ীও সতর্ক হয়ে মানুষকে কম ঠকায়
৪৫. পুলিশ বাজারে দেখলে ব্যবসায়ী পিরানহা মাছ ঢাকনা দিয়ে লুকিয়ে ফেলে
৪৬. পুলিশ বাজারে দেখলে আপনার জানা খাসির মাংস ছাগলের মাংস হয় এবং গরুর মাংস মহিষের মাংস হয়ে যায়
৪৭. পুলিশ থাকলে সুবিধাবাদী লোকগুলো চুপসে যায়
৪৮. পুলিশের ভয়ে মাদক ব্যবসায়ী গোপনে মাদক ব্যবসা করে, নইলে আপনার উঠানে দোকান বানাতো
৪৯. চাকরির ক্ষেত্রে ভেরিফিকেশনের জন্য পুলিশের সুদৃষ্টি কামনা করে
৫০. পুলিশ ক্লিয়ারেন্সের জন্য পুলিশের কাছে আসে
৫১. দেশে আইন না মানা সর্বোচ্চ ত্যাড়া লোকটিও বিদেশে গিয়ে বাইন মাছের মতো সোজা হয়ে চলে এবং তখন কিন্তু নিজের দেশের পুলিশকে ভালো বলে
৫২. এরা পুলিশকে ইট মারলেও বা ঠোলা বললেও পুলিশের চাকরি পেলে সম্মানিত হয়
৫৩. পুলিশ জনগণের সম্পর্ক অনেকটা গোপন ও প্রথম প্রেমের মত। স্বীকার করতে ভীষণ লজ্জা
৫৪. অনেক সময় বন্ধু বান্ধবের কাছে স্বীকার করে না কারণ যদি ভাগিয়ে নিয়ে যায়
৫৫. এরা মেয়ের জামাই পুলিশ হলে মোবাইল স্ক্রিনে তার ছবি রাখে। অনেকে ছবি বাধিয়ে প্রকাশ্যে ঝুলিয়ে রাখে শত্রুদের দেখানোর জন্য
৫৬. এরা প্রভাব বিস্তারের জন্য নিজ এলাকার পুলিশের কাছে পুলিশ আত্মিয়ের পরিচয় দেয় এবং পারলে মোবাইলে কথা বলিয়ে সম্পর্ক আপডেট করে রাখে
৫৭. পছন্দ না করলেও আত্মিয় পুলিশকে বিপদের সময় ফুলিয়ে ফাঁপিয়ে স্বার্থ উদ্ধার করে
৫৮. ট্রাফিক পুলিশে ধরলে কেস শ্লিপ লেখার আগেই আত্মিয় স্বজন পুলিশ আত্মিয়কে ফোনে ধরিয়ে দেয়
৫৯. পুলিশের ক্ষমতা নেই জেনেও জমিজমাসংক্রান্ত সমস্যা সমাধানের জন্য পুলিশের কাছে আসে। পুলিশ রাজি না হলে সর্বোচ্চ ব্যক্তি দিয়ে তদবির করতে কার্পণ্য করে না

আসলে পুলিশ হোলো মানব সমাজের লবণ। সবকিছুতেই লাগে। কম হলেও সমস্যা আবার বেশি হলেও সমস্যা। না হলে একদম চলেই না। বৌ যেমন তালাক হলে সর্বোচ্চ শত্রু হয় এরাও তেমনি পুলিশের কাছ থেকে চাওয়া পূরণ না হলে পুলিশের উপর খরগহস্ত হয়।

এই ধরুন বাংলাদেশ ও আমেরিকার মতো বিষয়টি। আমেরিকাকে বহুবিধ কারনে বাংলাদেশের মানুষ পছন্দ করে না কিন্তু কোনো ভাবে যদি আমেরিকা যাওয়া যায় তার জন্য সবকিছু করতে রাজি। প্রয়োজনে ট্রলারে চেপে কিংবা প্লেনের চাকা ধরে হলেও যাব এই আরকি। ট্রাম্প সাহেব অনেক কঠোর আইন করেছে জেনেও অভিবাসনের খবরাখবর অনেকেই একটু আধটু রাখেন। কেউ না বুঝে বা চালাকি করে ডিভি লটারির পোস্ট শেয়ার করলে একটু ভালো করে ঘেটে দেখে। বাংলাদেশের কোটা শেষ হবার কারণে এলিজিবল নয় জেনে পোষ্টদাতাকে দুষ্প্রাপ্য দুতিনটে গালি দিয়ে আমেরিকার বদনাম করে দুকাপ চা বেশি খায়। পুলিশের বেলায়ও ঠিক এরকমই আরকি।

পুলিশকে নিয়ে বেশি সমালোচনার কারন হোলো পুলিশের কাছ থেকে জনগণ অতি দ্রুত সেবা আশা করে। একটুখানি বেশি আশা করে এই যা। আভ্যন্তরীন সমাজ পরিস্কারের একমাত্র দায়িত্ব পুলিশের। এই ধরুন সমাজ ধুয়ে পরিষ্কার করে পুলিশ নামের একমাত্র পচা সাবান। তাই পুলিশ নিয়ে একটুখানি বেশি ঘসাঘসি করে। অন্য কোন বিকল্প বাহিনী থাকলে এতোটা সমস্যা হোতো না। তবে পাবলিক মনিবদের এটাও খেয়াল রাখতে হবে যে কিভাবে পচা সাবানটিকেও একটুখানি যত্নে রাখতে হয়। কিছু ডেট ওভার পুলিশও আছে যারা সু্যোগ পেলে টুকটাক অপকর্মের করে ফেলে।

মনে জানবেন পুলিশের অপরাধে শাস্তির কাজটি ইনস্ট্যানট। অনেক সময় শুধুমাত্র আপনাদের খুশি করার জন্য নির্দোষ জেনেও কিছু ওসি টোসি ধুমধাম ক্লোজ করা হয়। তিতাস টিতাসে একটুখানি সময় বেশি লাগে এই আরকি। তবে আশার বিষয় হোলো সরকার পুলিশকে যুগোপযোগী করার জন্য অনেক চেষ্টা করছে। আপনারা বাড়ির পুলিশ বিধায় একটুখানি ছোটখাটো ভাবলেও আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশ পুলিশের একটি বিশেষ গ্রহনযোগ্যতা আছে। কয়েকটি বিষয়ে বাংলাদেশ পুলিশ বিশ্বে আইডল। আপনার কর্মচারী তাই আপনি এগুলো স্বীকার না করতেই পারেন। বিশ্ব পুলিশের একটি প্লাটফর্মে কিছুদিন কাজ করে এসে কিছুটা বুঝেছি।

হে মনিব আপনাকেও আরও একটুখানি ভালো হতে হবে। আইন মানতে হবে। নইলে এই ভৃত্যের একটুখানি লজ্জা লজ্জা লাগে। হে পুলিশ ভাই বোন ও বন্ধুগন আপনাদেরকেও আরো একটু ভালো হতে হবে। আপনাদের মধ্যে অল্পসংখ্যক ভৃত্যকে আরও একটুখানি সতর্ক হতে হবে। একজনের দোষে আপনাদের সকলকে দোষী করা হয় ভেবে হীনমন্যতায় না ভুগে পুলিশের অসংখ্য মহামানবদের অনুসরণ করুন।

জনগণ স্বীকার না করলেও আপনি তো জানেন এরা সকলে অপবাদ মাথায় নিয়েও কিভাবে মানবসেবায় জীবন উৎসর্গ করছেন। আসুন আপনি আমিও গতকালের চেয়ে আজ একটুখানি ভালো কাজ করার চেষ্টা করি। কে কি বলল তাতে কিছু আসে যায় না। ইতিহাস একদিন সঠিক সাক্ষ্য দেবে…….

Collected from the wall of Ratan Krishna Roy Chowdhury

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You cannot copy content of this page