সেবার মান বেড়ে চলেছে ভোমরা ইমিগ্রেশন অফিসার মাজরেহার তৎপরতায়

দ্বারা Updates Stkhira
০ মন্তব্য 323 দর্শন

 

ভারত থেকে আসা ভোমরা ইমিগ্রেশনে পাসপোর্ট ধারী যাত্রীদের সেবার মান দিন দিন বেড়ে চলেছে বলে মন্তব্য করেছেন একাধিক সেবা গ্রহীতা।সম্প্রতি ভোমরা ইমিগ্রেশন অফিসার হিসাবে সাতক্ষীরা থানার সাব-ইন্সপেক্টর মাজরেহা হোসাইন যোগদানের পর থেকেই জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান পিপিএম-বার এঁর দিক নির্দেশনা মোতাবেক সকাল ৭ টা থেকে সন্ধা ৭ টা পর্যন্ত নিরবিচ্ছিন্ন ভাবে দেশে ফেরা পাসপোর্ট যাত্রীদের সেবা দিয়ে যাচ্ছেন ভোমরা ইমিগ্রেশনের আইসি মাজরেহা হোসাইন।

সেবা গ্রহীতা দৈনিক আনন্দ বাজারের সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধি মীর খায়রুল আলম তার ব্যক্তিগত ফেইজবুকে লিখেছেন…….

একজন জনবান্ধব ও সাংবাদিকবান্ধব পুলিশ কর্মকর্তা মাজরিহা হোসাইন ভাই, খুবই আন্তরিক মানুষ। বর্তমানে ভোমরা স্থলবন্দর ইমিগ্রেশনের দায়িত্ব ইনচার্জ হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। দায়িত্ব পাওয়ার পর থাকে বাংলাদেশ/ভারত গমন ও ফেরত যাত্রীদের ভোগান্তি কমাতে বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছেন। শেষবার ভারত ভ্রমনে যাওয়া ও আসার সময় মাজরিহা ভাইয়ের নিকট থেকে বিগতদিনের তুলনায় হয়রানিমুক্ত অনেক সহযোগিতা পেয়েছি। শুভ কামনা রইল আপনার জন্য।

সোবা গ্রহীতা এক যুবক  আশিক বিল্লাহ তার ফেইজবুকে লিখেছেন,পাস‌পোর্ট যাত্রী‌দের হয়রা‌নি লাঘ‌বে এস‌পি ম‌হোদ‌য়ের নি‌র্দেশক্র‌মে ভোমরা ইমি‌গ্রেশ‌ন ইনচা‌র্জের দা‌য়িত্ব পে‌লেন…
চৌকস, সৎ, দায়িত্বশীল ও মানবিক পুলিশ অফিসার মাজ‌রিহা হোসাইন ভাইয়া।

এমন প্রশংসা মুলক স্টাটাস সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রায় প্রায় দেখা যায় ভোমরা ইমিগ্রেশন অফিসার মাজরেহা হোসাইন কে ঘিরে।তার আচার-ব্যবহারে মুগ্ধ হয়েছেন ভোমরা পোর্সের ব্যবসায়ী নেতা সহ পাসপোর্ট ধারী যাত্রীগণ।তবে ভোমরা ইমিগ্রেশনের আশেপাশে একটি দালাল চক্র ঘুরতে থাকে। তাদের কে  অবৈধ সুযোগ সুবিধা না দেওয়ায়,ইমিগ্রেশনে  নতুন যে অফিসার যোগদান করে, সারা দিন তার নামে অপপ্রচার দিতে থাকে। সাংবাদিক দের ভুল তথ্য দিতে থাকে।সম্প্রতি ভোমরা ইমিগ্রেশন নিয়ে একটি নিউজ এ প্রতিবেদকের চোখে পড়েছে। এবিষয়ে ভোমরা ইমিগ্রেশন অফিসার মাজরেহা হোসাইন আপডেট সাতক্ষীরা কে বলেন, আমার এখানে দায়িত্বরত ৩ জন এএসআই আছেন ও ১৬ জন কনস্টেবল  আছেন।তিনি বলেন, পুলিশ সুপার মহোদয়ের নির্দেশনা মোতাবেক আমি সপ্তাহে ৭ দিন  সকাল ৭ টা থেকে সন্ধা ৭ টা পর্যন্ত নিরবিচ্ছিন্ন ভাবে দায়িত্ব পালন করে আসছি।

তারা যদি আমার নাম করে কোন যাত্রীদের নিকট থেকে আর্থিক সুবিধা গ্রহণ করে তাহলে আমি তাদের বিরুদ্ধে পুলিশ সুপার মহোদয় কে জানিয়ে সর্বোচ্চ কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।পাসপোর্ট ধারী যাত্রীদের সেবার মান বাড়াতে  তিনি সকলের সহযোগীতা কামনা করেছেন।

প্রাসংঙ্গত : ভোমরা ইমিগ্রেশন এর আগে সাবেক ইমিগ্রেশন অফিসার জাহাঙ্গীর হোসেন দায়িত্ব পালন করছিলেন তাকে গতকাল সাতক্ষীরা পুলিশ লাইন্সে ক্লোজ করা হয়েছে এবং এসআই মাজরেহা হোসাইন কে ভোমরা ইমিগ্রেশনের ইনচার্জ হিসাবে দায়িত্ব প্রদান করেছেন সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান পিপিএম-বার।

 

 

০ মন্তব্য

আরও পোস্ট পড়ুন

মতামত দিন