হাইওয়ে পুলিশের ১৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

দ্বারা zime
০ মন্তব্য 35 দর্শন

 

বাংলাদেশ পুলিশের বিশেষায়িত ইউনিট হাইওয়ে পুলিশের ১৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদ্‌যাপিত হয়েছে। এ উপলক্ষে আজ মঙ্গলবার সকালে (১১ জুন) রাজারবাগে বাংলাদেশ পুলিশ অডিটরিয়ামে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা আসাদুজ্জামান খান, এমপি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন।

ইন্সপেক্টর জেনারেল অব পুলিশ, বাংলাদেশ চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন বিপিএম (বার), পিপিএম-এর সভাপতিত্বে আলোচনা অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন হাইওয়ে পুলিশের অতিরিক্ত আইজিপি মো. শাহাবুদ্দিন খান বিপিএম (বার)।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি বেনজীর আহমদ, এমপি, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মো. জাহাংগীর আলম প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে অতিরিক্ত আইজি (প্রশাসন) মোঃ কামরুল আহসান বিপিএম (বার), স্পেশাল ব্রাঞ্চের প্রধান অতিরিক্ত আইজি মোঃ মনিরুল ইসলাম বিপিএম (বার), পিপিএম (বার)সহ বাংলাদেশ পুলিশের অতিরিক্ত আইজিগণ, ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাগণ, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক-শ্রমিক নেতৃবৃন্দ এবং সড়ক পরিবহন সংশ্লিষ্ট নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, এমপি বলেন, মহাসড়কে যানবাহন চলাচলে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে হাইওয়ে পুলিশ প্রশংসনীয় ভূমিকা রাখছে। ট্রাফিক ব্যবস্থা স্বাভাবিক রাখার লক্ষ্যে ইতোমধ্যে হাইওয়ে পুলিশে ড্রোন সংযোজন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, হাইওয়ে পুলিশের তৎপরতার ফলে গত ঈদুল ফিতরে জনগণের যাত্রা স্বস্তিদায়ক হয়েছে। মন্ত্রী আশা প্রকাশ করে বলেন, এবার ঈদুল আযহায়ও জনগণ নির্বিঘ্নে তাদের নিজ নিজ গন্তব্যে পৌঁছতে পারবেন।

মন্ত্রী সড়কে নিরাপত্তা প্রদানের পাশাপাশি মাদক পরিবহন বন্ধে কাজ করার জন্য হাইওয়ে পুলিশকে নির্দেশনা প্রদান করেন।

জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মোঃ জাহাংগীর আলম বলেন, নিরাপদ সড়ক গড়ে তোলা শুধু হাইওয়ে পুলিশের একার পক্ষে সম্ভব নয়। এজন্য প্রয়োজন সড়ক ব্যবহারকারীদের ট্রাফিক আইন মান্য করা। তিনি ট্রাফিক আইন মেনে চলার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান।

সভাপতির বক্তব্যে আইজিপি চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন বিপিএম (বার), পিপিএম বলেন, হাইওয়ে পুলিশ আন্তরিকতার সাথে সড়কে শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য কাজ করছে। আজ হাইওয়ে পুলিশের অস্তিত্ব সকল স্থানে দৃশ্যমান।

তিনি বলেন, আসন্ন পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ছাড়া পশুবাহী কোন গাড়ি থামানো যাবে না বলে পুলিশের সকল ইউনিটকে ইতোমধ্যে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

তিনি বলেন, পুলিশ সফলতার সাথে দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে দেশে শান্তি-শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা বজায় রাখার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

আইজিপি বলেন, জনগণ যাতে নিরাপদে নিজ নিজ গন্তব্যে পৌঁছতে পারে সেজন্য হাইওয়ে পুলিশ, জেলা পুলিশসহ সংশ্লিষ্ট সকল পুলিশ ইউনিট আন্তরিকভাবে কাজ করছে।

হাইওয়ে পুলিশের অতিরিক্ত আইজি মো. শাহাবুদ্দিন খান, বিপিএম (বার) বলেন, নানা সীমাবদ্ধতা স্বত্বেও নিরাপদ সড়ক গঠনের জনপ্রত্যাশা পূরণে হাইওয়ে পুলিশ আন্তরিকভাবে কাজ করে যাচ্ছে। তিনি হাইওয়ে পুলিশের জনবল বাড়ানো এবং আইন প্রয়োগে কঠোরতার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে হাইওয়ে পুলিশের সার্বিক কার্যক্রমের ওপর একটি ডকুমেন্টারি প্রদর্শন করা হয়। পরে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে একটি কেক কাটা হয়।





০ মন্তব্য

আরও পোস্ট পড়ুন

মতামত দিন