এডিশনাল এসপি সজীব খানের নেতৃত্বে সাঁড়াশি অভিযান : শিশু নির্যাতনকারী সেই মহিলা আটক

দ্বারা Updates Stkhira
০ মন্তব্য 3235 দর্শন

 

পাঁচ বছরের শিশু আলিফ ফরহাদ কে নৃশংশভাবে নির্যাতন করার অপরাধে আসামী রানী বেগম (২২) কে গতকাডল দুপুরে তার নিজ বাড়ি দেবহাটা থানাধীন চরবালিথা থেকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ।জেলা পুলিশের এক লিখিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়,

পাঁচ বছরের শিশু আলিফ ফরহাদ তার মামা আশরাফুল (২৩) দেবহাটা থানায় চরবালিথা বাড়িতে থাকতেন। থানা-দেবহাটা তার মা না থাকায় সে মামার বাড়িতে থাকে। বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে তার মামী আসামী রানী বেগম (২২) (যাকে শিশুটি মা বলে ডাকে) শিশু আলিফ কে বসত ঘরের ধারালো অস্ত্র দিয়ে দুই চোখ খুচিয়ে-খুচিয়ে মারাত্মক ভাবে রক্তাক্ত জখম করে এবং তার চোখের আশে পাশে, মুখমন্ডলে, নাকে, মুখে ঠোটে রক্তাক্ত জখম করে। তাছাড়া আসামী রানী বেগম শিশুটিকে হত্যার উদ্দেশ্যে তার গলায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে গুরুত্বর জখম করে। শিশু আলিফ মৃত্যুবরণ করেছে মনে করে আসামী রানী বেগম তাকে বাড়ির পাশে পুকুরের (পানি বিহিন পুকুর) মধ্যে ফেলে রেখে যায়।

দুপুরে শিশু আলিফের ছোট মামা আশিক (১৪) বাড়িতে এসে তাকে খোজাখুজি করতে থাকে। খোঁজাখুজির এক পর্যায়ে শিশু আলিফ কে বাড়ির পাশে পুকুরের মধ্যে হতে মৃতপ্রায় অবস্থায় উদ্ধার করে। স্থানীয়দের সহায়তায় তাকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নেওয়া হয় এবং সেখানে তাকে প্রাথমিক ভাবে চিকিৎসা প্রদান করা হয়। শিশুটি তখন উপস্থিত চিকিৎসক, সাংবাদিক ও স্থানীয় লোকজনদের সামনে তার মামী রানী বেগম তাকে এরুপ ভাবে নির্যাতন করেছে বলে জানায়। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে।

সাতক্ষীরা জেলা পুলিশের এক লিখিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়,

স্থানীয় ভাবে ঘটনার সংবাদ পেয়ে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান পিপিএম -বার এরকম শিশু নির্যাতনের স্পর্শকাতর ঘটনায় জড়িত আসামীকে তাৎক্ষনিক ভাবে গ্রেফতার করার জন্য প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা প্রদান করলে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) মো: সজীব খানের নেতৃত্বে দেবহাটা থানার ওসি শেখ ওবায়দুল্লাহ, ডিবির ওসি বাবুল আক্তার,সাতক্ষীরা থানার ভারপ্রাপ্ত ওসি ইন্সপেক্টর(তদন্ত) বিশ্বজিত কুমার সহ সঙ্গীয় ফোর্স বেলা ২টায়  যৌথভাবে অভিযান পরিচালনা করে আসামী রানী বেগম (২২)কে আটক করতে সক্ষম হয়। আসামী রানী বেগম সে দেবহাটা চর বালিথা গ্রামের আশরাফুল ইসলামের স্ত্রী।

জেলা পুলিশের লিখিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয় গ্রেফতারকৃত আসামীকে পুলিশের উদ্ধর্তন কর্মকর্তাগণ জিজ্ঞাসাবাদ অব্যাহত রেখেছেন।পরবর্ত্তী আপডেট জিজ্ঞাসাবাদ শেষে সাংবাদিক দের প্রেস ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে জানানো হবে বলে নিশ্চিত করেছেন দেবহাটা থানার ওসি শেখ ওবায়দুল্লাহ।

০ মন্তব্য

আরও পোস্ট পড়ুন

মতামত দিন