লকডাউন আরও এক সপ্তাহ বাড়ল সাতক্ষীরায় : বাস্তবায়নে কঠোর হচ্ছে প্রশাসন


 

করোনার উর্দ্ধগতি নিয়ন্ত্রন না হওয়ায় দ্বিতীয় দফায় আরও এক সপ্তাহ লকডাউন বাড়ানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির ভার্চুয়াল সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। ফলে আগামী ১৭ জুন রাত ১২ টা পর্যন্ত জেলাব্যাপী লকডাউন কার্যকর থাকবে।

লকডাউন চলাকালীন সময়ে বিশেষ পরিবেসা বাদে সবধরনের যানবাহন, দূরপার্লার পরিবহন, দোকানপাট বন্ধ থাকবে। সকাল ৮ টা থেকে দুপুর ১১ টা পর্যন্ত কাঁচাবাজার ও নিত্যপ্রয়োজনীয় সিনিসপত্রের দোকান খোলা থাকবে। ভোমরা স্থল বন্দরে সকাল ৮ টা থেকে বেলা ২ টা পর্যন্ত আমদানি রপ্তানি কার্যক্রম চাল থাকবে। সীমান্তে কঠোর নজরদারি অব্যাহত থাকবে যাতে কোন মানুষ সীমান্তের চোরাই পথে আসা-যাওয়া না করতে পারে।

সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক ও জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি এস এম মোস্তফা কামাল জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভায় করোনার সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে ভার্চয়াল সভায় বিস্তারিত আলোচনা হয়। সভায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা অব্যাহতভাবে বৃদ্ধি পাওয়ায় আরও এক সপ্তাহ লকডাউনের সময়সীমা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে । অর্থাৎ আগামী ১৭ জুন রাত ১২ টা পর্যন্ত জেলাব্যাপী লকডাউন বলবদ থাকবে।

সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন ও জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সদস্য সচিব ডা: হুসাইন সাফায়াত জানান, সাতক্ষীরায় করোনার উর্দ্ধগতি বৃদ্ধি পাওয়ায় গত ৫ জন থেকে জেলাব্যাপী লকডাউন শুরু হয়। কিন্তু লকডাউন চলাকালীন সময়ে করোনা পরিস্থিতির তেমন কোন উন্নতি হয়নি। আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। তিনি বলেন প্রথম দফায় যখন লকডাউন ঘোষণা করা হয় তখন করোনা সংক্রমনের হার ছিল ৫৩ শতাংশ। কিন্তু বর্তমানে জেলায় সংক্রমনের হার ৫৯ দশমিক ৩৪ শতাংশ পর্যন্ত বৃদ্ধি পেয়েছে। বিধায় দ্বিতীয় দফায় আরও এক সপ্তাহ লকডাউন বাড়িয়ে আগামী ১৭ জুন রাত ১২ টা পর্যন্ত করা হয়েছে। দ্বিতীয় দফা লকডাউন শেষে আবারও জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হবে বলে তিনি জানান।

সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান পিপিএম-বার বলেন,আমরা লক ডাউন বাস্তবায়নে কঠোর অবস্থানে ছিলাম এখনো আছি।তিনি জানান, জেলায় প্রবেশের সকল পথে বাঁশ টানিয়ে পুলিশ চেকপোস্ট বসিয়েছে। বিনা কারনে বাইরে আসলে পুলিশের কাছে জবাবদিহীতায় পড়তে হচ্ছে। যানবাহনে মামলা দেওয়া হচ্ছে। তারপরেও জনগণ পুলিশের সাথে লুকোচুরি করছে।পুলিশ যতক্ষণ রাস্তায় থাকছে, ততক্ষণ জনগণ রাস্তায় কম চলছে।,যেই পুলিশ চলে যাচ্ছে সেই আবার মানুষ বেরিয়ে পড়ছে।তিনি আরো বলেন,আগামী ১৭ জুন রাত ১২ টা পর্যন্ত জেলাব্যাপী লক ডাউন বাস্তবায়নে সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ আরো কঠোর অবস্থানে যাবে ।

এদিকে ৩৩ বিজিবির সিও লে.কর্ণেল আল মাহমুদ জানান,আমাদের বিজিবি সদস্যরা দিন-রাত ২৪ ঘন্টাই পাহারা দিচ্ছে সীমান্তের ভেড়ি।কোন অবস্থাতেই অবৈধ ভাবে দেশে প্রবেশের সুযোগ নেই।যারা চুরি করে দেশে আসার চেষ্টা করেছে তারা বিজিবির হাতে আটক হয়ে জেল হাজত খাটছে।তিনি আরো জানান,করোনা ঠেকাতে সেকেন্ড ধাপের লক ডাউন বাস্তবায়নে সাতক্ষীরা বিজিবি আরো কঠোর অবস্থানে যাবে।

এদিকে , সাতক্ষীরায় গত ২৪ ঘন্টায় ৯৫ জনের জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৪৮ জনের করোনা সনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তের হার ৫০ দশমিক ৫২ শতাংশ। এছাড়া করোনা উপসর্গ নিয়ে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বৃহস্পতিবার ভোরে আরও ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। করোনা আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত জেলায় মৃত্যু হয়েছে ৪৯ জনের।

উল্লেখ্য, গত ৩ জুন জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভায় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ৫ জুন থেকে জেলাব্যাপী লকডাউন শুরু হয়। প্রথম দফায় লকডাউন ১১ জুন রাত ১২ টায় শেষ হওয়ার কথা ছিলো। লকডাউন আরও এক সপ্তাহ বৃদ্ধি পাওয়ায় আগামী ১৭ জুন রাত ১২ পর্যন্ত কার্যকর থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You cannot copy content of this page